অ্যান্ড্রয়েডের জন্য সেরা ৫ টি ব্যাটারী সেভার অ্যাপ!



ব্যাটারি সেভিং এবং ব্যাটারী ড্রেইনিং বর্তমানে খুবই আলোচিত একটি বিষয়আসলে আপনার ব্যাটারি সেভ করে এমন কোনো অ্যাপ খুঁজে পাওয়া সত্যিই কঠিন, কারণ বেশিরভাগক্ষেত্রে ব্যাটারি সেভার অ্যাপ গুলো তেমন কোনো উপকারে আসে না। বরং এগুলো ফোনকে আরো বেশি স্লো করে দেয়। ব্যাটারী সেভ করা বা ব্যাটারী ব্যাকআপ বাড়ানোর জন্য কার্যকরী উপায় হলঃ আপনার স্ক্রিনের ব্রাইটনেস লো করা, অ্যাপগুলিকে ব্যাকগ্রাউন্ডে চলতে না দেয়া, ব্যাটারী ক্যালিব্রেশন ইত্যাদি।
 তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে, আপনি ব্যাটারি ড্রেনের কারণ এবং কীভাবে ব্যাটারী ব্যাক আপ বাড়ানো যায় তা বুঝতে পারলে আপনার ফোনের ব্যাটারী ব্যাকআপে উন্নতি দেখতে পাবেনতবুও যদি আপনি এমন কিছু অ্যাপ ব্যবহার করতে চান যা আপনার ব্যাটারী সেভ করতে পারে তবে এখানে অ্যান্ড্রয়েডের জন্য সেরা কিছু ব্যাটারী সেভার অ্যাপ এর তালিকা রয়েছে।

# Greenify

·         গ্রীনিফাই হচ্ছে অন্যতম জনপ্রিয় ব্যাটারি সেভার অ্যাপ্লিকেশনফোনের যেসব অ্যাপ ব্যাকগ্রাউন্ডে চলতে থাকে এবং আপনার ব্যাটারী ড্রেইন করতে থাকে এটি ম্যানুয়ালি সেইসব অ্যাপের ব্যাকগ্রাউন্ডে চলা বন্ধ করতে পারে আগে এই গ্রীনিফাই অ্যাপটি শুধুমাত্র রুটেড ফোনে কাজ করতো, তবে এখন এটি রুটেড এবং ননরুটেড উভয় ডিভাইসের জন্যই কার্যকরতবে, আপনি রুটেড ফোনে এই অ্যাপের আরও বিভিন্ন ফিচার ব্যবহার করতে পারবেনঅ্যাপটি একদম বিনামূল্যে প্লে স্টোরে পাবেন।




# GSam Battery Monitor

·         জিএসএম ব্যাটারী মনিটর হচ্ছে অন্য একটি জনপ্রিয় অ্যাপ। এটা নিজ থেকে ব্যাটারী সেভ করার জন্য কোনো কাজ করে না।  কিন্তু এটা আপনার ফোনের ব্যাটারী ড্রেইনিং অ্যাপগুলো সম্বন্ধে আপনাকে বিভিন্ন তথ্য দিতে পারে। এটি ওয়েকলকস, ওয়েক টাইম, অ্যাপের ব্যাটারী ড্রেইনিং পারসেন্টেজ, সিপিউ এবং সেন্সর ডাটা ইত্যাদি তথ্য ইউজারকে শো করে। আপনি এই তথ্যগুলো কাজে লাগিয়ে ম্যানুয়ালি আপনার ব্যাটারী লাইফ সেইভ করতে পারবেন। এটা রুটেড অ্যান্ড্রয়েড এ সবচেয়ে ভালোভাবে কাজ করে। তবে আমি নন-রুটেড ফোনে এটি ঠিকমতো ব্যবহার করে দেখেছি। অ্যান্ড্রয়েড ৫.০ এর আগের ভার্সন গুলোতে এই অ্যাপটি ব্যবহার করা একটু কঠিন হতে পারে।



# Servicely (root only)

·         সার্ভিসলি হচ্ছে রুটেড অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি অ্যাপ। এটি ব্যাকগ্রাউন্ডে চলা অ্যাপগুলো বন্ধ করে ব্যাটারী ব্যাকআপ বৃদ্ধি করে। এটি ব্যাটারীখেকো অ্যাপগুলোকে সবসময় সিঙ্ক করা থেকে বিরত রাখে। কিন্তু এটি নিজে সবসময় ব্যাকগ্রাউন্ডে চলতে থাকে, যা অনেকের মোটেই পছন্দ না। মাঝে মাঝে এটি বিভিন্ন নোটিফিকেশন পাঠায়। তবে এটি এমন একটি অ্যাপ, যা আপনার চাহিদার ৯৯% পূরণ করতে সক্ষম। এটি হাই-কনফিগারেবল একটি অ্যাপ। আপনি যদি রুটেড অ্যান্ড্রয়েড ইউজার হন, তাহলে এই অ্যাপটি ব্যবহার করে দেখতে পারেন। আশা করি, ভালো ফলাফল পাবেন।



# Power Battery

·         অন্য সেরা ব্যাটারি সেভার অ্যাপ্লিকেশনগুলির মতো, পাওয়ার ব্যাটারিতেও বিভিন্ন ব্যাটারী সেভিং ফিচার রয়েছে। এটি মূলত ব্যাটারি মনিটর, ব্যাটারি সেভার এবং দ্রুত চার্জিং ইত্যাদি সেবা দিয়ে থাকে অ্যাপটি নিয়মিত বিভিন্ন ডেটা যেমনঃ কোন অ্যাপগুলো বেশি ব্যাটারী খরচ করছে, বিভিন্ন পাওয়ার সেভিং সেটিংস ইত্যাদির মাধ্যমে ব্যাটারী ব্যাক আপ বাড়াতে সাহায্য করেঅবশেষে, এটি ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপ্লিকেশনগুলিকে কিল করে এবং প্রয়োজনে মেমরি বুস্টার এবং জাঙ্ক ফাইল ক্লিনার অন্তর্ভুক্ত করে




# AccuBattery

·         অ্যাকু ব্যাটারি একটি ব্যাটারি "চার্জ অ্যালার্ম" এর মাধ্যমে আপনার ব্যাটারি পর্যবেক্ষণ করে যা আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসকে অতিরিক্ত চার্জ করা থেকে বিরত রাখেব্যাটারি চার্জ পারসেন্টেজ, চার্জের পরিমাণ, তাপমাত্রা, ব্যাটারি ক্ষমতা এবং পূর্ববর্তী ব্যবহারের উপর ভিত্তি করে আনুমানিক রানটাইম সহ ব্যবহারকারীরা তাদের ব্যাটারির স্থিতির একটি দ্রুত ওভারভিউ অ্যাক্সেস করতে পারেন আপনি যখন ফোন 80% চার্জ করবেন তখন অ্যাপটির চার্জ অ্যালার্মটি শব্দ করে আপনার ফোনকে অতিরিক্ত চার্জ করা থেকে বিরত রাখতে পারে; তবে আপনি এই ফিচারটি কনফিগার করতে পারেন বা এটি চালু বা বন্ধ করতে পারেন অ্যাকু ব্যাটারি বিনামূল্যে গ্রাহককে ব্যাটারি সম্পর্কিত প্রচুর তথ্য সরবরাহ করে, তবে আপনি এর প্রিমিয়াম ভার্সন কিনলে আরো বেশি ফিচার উপভোগ করতে পারবেন। এটি নোটিফিকেশন বার এ ব্যাটারির বিবরণ দেখাতে থাকে, যার ফলে আপনি আপনার ব্যাটারীর বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারেন।



আজ এই পর্যন্তই। কোন অ্যাপটি আপনি ব্যবহার করেন বা কোন অ্যাপটি ব্যবহার করে আপনার ভালো লেগেছে তা অবশ্যই কমেন্টে জানাবেন। আপনার দেয়া মতামত এই ব্লগটিকে আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে ভূমিকা রাখবে। ধন্যবাদ

2 Comments

Write your opinion

  1. Greenify অ্যাপ টা আগে ইউস করতাম। খুবই ভালো অ্যাপ

    ReplyDelete
  2. Sharif Kazi15/6/20 7:04 PM

    ভালো লিখেছেন ব্রাদার। এগিয়ে যান।

    ReplyDelete
Previous Post Next Post