অ্যান্ড্রয়েডের জন্য সেরা কয়েকটি কীবোর্ড অ্যাপ!



বেশিরভাগ মানুষই লেখালেখির জন্য তাদের ফোনের ডিফল্ট কীবোর্ড ব্যবহার করেন। এগুলো সাধারণত অ্যান্ড্রয়েডের স্টক কীবোর্ড বা ওই মোবাইল কোম্পানীর নিজস্ব কীবোর্ড হয়ে থাকে। তবে এগুলো আপনার জন্য যথেষ্ট নাও হতে পারে। অ্যান্ড্রয়েডের জন্য বিভিন্ন থার্ড পার্টি কীবোর্ড অ্যাপ রয়েছে যেসবে বিভিন্ন মজাদার ফিচার এবং কাস্টমাইজেশন সুবিধা রয়েছে।

আজকাল মাইক্রোসফটের সফটকি, এবং গুগলের জিবোর্ড বাজারে আধিপত্য করছে এবং বেশিরভাগ লোক এগুলোই ব্যবহার করে। তবে এগুলো ছাড়াও আরো ভালো কিছু অ্যাপ রয়েছে, যা আপনার টাইপিং কে আনন্দময় করে তুলতে পারে। তাহলে চলুন সেসব সেরা অ্যান্ড্রয়েড কীবোর্ড গুলো দেখে নেওয়া যাক।

Fleksy

ফ্লিকসি হল সর্বাধিক জনপ্রিয় অ্যান্ড্রয়েড কীবোর্ড। এতে Swipe, Web Search, GIF, Meme, Theme, Extension এবং আরও অনেক কিছু সহ সমস্ত অসাধারণ বৈশিষ্ট্যযুক্ত। থীমগুলোর বেশিরভাগ বিনামূল্যে। তবে বেশ কয়েকটি পেইড থীমও রয়েছে। তবে এগুলি খুব বেশি দামী নয়। এই কীবোর্ড সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এবং ব্যবহারের জন্য সেরা একটি অ্যাপ।

Gboard

জিবোর্ড হলো গুগলের অফিসিয়াল স্টক কীবোর্ড। এটিতে অনেকগুলি ব্যাসিক বৈশিষ্ট্য যেমন অটো-কারেকশন, বিভিন্ন ভাষা টাইপিং এবং বিভিন্ন কাস্টমাইজেশন বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এতে গুগল সার্চ বিল্ট-ইন ভাবে দেওয়া আছে। তার মানে আপনি কীবোর্ড থেকে বের না হয়েই গুগলে সার্চ করতে পারেন। এছাড়াও একটি GIF Search, Voice Typing এবং গুগল ট্রান্সলেট এর সুবিধা রয়েছে। গুগল প্রায়শই এই কীবোর্ডে বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য যুক্ত করে। বর্তমানে এই অ্যাপের ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১ বিলিয়নের ওপরে।

Grammarly

এই নামটি হয়তো অনেকেই শুনেছেন। গ্রামারলি হলো নতুন অ্যান্ড্রয়েড কীবোর্ডগুলির মধ্যে একটি। এটি ক্রোম এক্সটেনশান হিসাবে যাত্রা শুরু করেছিল এবং এটি টাইপ করার সাথে সাথে আপনার গ্রামাটিক্যাল ভূল সংশোধন করতে পারে। এটি আপনার ব্যাকরণ এবং বানানের পাশাপাশি বিরামচিহ্নও সংশোধন করে। এটি নতুন, তাই এটি এখনও ডেভেলপমেন্ট এ রয়েছে। এর ভবিষ্যতের আপডেটগুলিতে আরও নতুন বৈশিষ্ট্য আসবে বলে আশা করি। আমি এটি পছন্দ করি কারণ, এটি আপনার  ভুলগুলো ব্যাখ্যা করে এবং যদি আপনি চান তাহলে আপনি এটি থেকে শিখতেও পারেন। কীবোর্ডটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে।

SwiftKey

অধিকাংশের মতে সুইফটকি সর্বকালের সেরা অ্যান্ড্রয়েড কীবোর্ডগুলির মধ্যে একটি। এটিতে টাইপিং, ক্লাউড সিঙ্কের পাশাপাশি লাইন প্রেডিকশন এবং অটো-কারেকশন ফিচার রয়েছে। আপনি যাতে এটি ব্যবহার করে আনন্দ পান এজন্য রয়েছে বিভিন্ন থিম, কীবোর্ড কাস্টমাইজেশন, একটি নাম্বার রো এবং আরও অনেক কিছু। এটি প্রায় 100 টিরও বেশি ভাষার সমর্থিত। কীবোর্ড এবং এর সমস্ত ফিচার বিনামূল্যে তবে আপনাকে বেশিরভাগ থীম কিনে ব্যবহার করতে হবে। কয়েক বছর আগে মাইক্রোসফ্ট কীবোর্ডটি কিনে নিয়েছিল, এবং এটি এখনও আগের মতোই কাজ করে।

FancyFey

ফ্যানসিফাই হলো সেরা অ্যান্ড্রয়েড কীবোর্ডগুলির মধ্যে একটি। এটি কাস্টমাইজেশন, থিম এসব বিষয়গুলিতে অনেক বেশি ফোকাস করে। অ্যাপটিতে 50 টিরও বেশি থিম, 70টি ফন্ট এবং 3,200 ইমোজি এবং ইমোটিকন বৈশিষ্ট্যযুক্ত। আপনি এটিতে টাইপিং এবং 50 টি ভাষার জন্য সমর্থন সহ অটো কারেকশন বৈশিষ্ট্য পাবেন। কিছু গুগল প্লে রিভিউয়ার মাঝে মধ্যে অ্যাপটির বাগ বা সমস্যা সম্পর্কে অভিযোগ করে। তবে এটি আমার ব্যবহারের সময় ভাল কাজ করেছে বলে মনে হয়েছিল। যদি এটি আপনার পক্ষে কাজ না করে তবে উপরের অ্যাপগুলো ব্যবহার করতে পারেন।


যদি আপনার জানামতে এমন কোনো ভালো কীবোর্ড অ্যাপ থাকে, যা আমি পোস্টে উল্লেখ করি নি, তাহলে কমেন্টে আমাকে জানাতে পারেন। আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। 

Post a Comment

Write your opinion

Previous Post Next Post